গেইলের চমক

আপডেট : December, 9, 2015, 5:24 pm

বিপিএলের রাতের ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু হতেই শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের চার পাশের গ্যালারি থেকে শুধু এই একটি নামই হাজার হাজার দর্শকের মুখ থেকে বেরিয়ে আসে। কারণ ব্যাট হাতে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে বরিশালের হয়ে জ্বলে উঠেন ক্যারিবীয় ব্যাটিং টর্নেডো ক্রিস গেইল, দেখা পেয়েছেন এবারের বিপিএএলে নিজের প্রথম অর্ধ শতকের। মাত্র ৮ রানের জন্য শতক বঞ্চিত হন অপরাজিত থাকা গেইল।

গেইলের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ভাইকিংসের ছুঁড়ে দেওয়া ১৩৬ রানের লক্ষ্য ৫ ওভার বাকি থাকতেই পেরিয়ে যায় বরিশাল। ৮ উইকেটের জয় তুলে নেয় বরিশাল।

বিপিএলের আসরে সর্বোচ্চ তিনটি শতকের মালিক গেইল প্রতিপক্ষ চিটাগং ভাইকিংসের বোলারদের এক একটি বল কখনও উড়িয়ে মাঠের বাইরে ফেলেছেন, আবার কখনো মাটি গড়িয়ে সীমানা ছাড়া করেছেন।

ব্যাট হাতে জ্বলে উঠা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সব চাইতে বড় এই স্পন্সর এবারের বিপিএলে এই ম্যাচের আগেও অবশ্য দুটি ম্যাচ খেলেছেন। তবে সেই দুটিতে বড় রানের দেখা পাননি। ৬ ডিসেম্বর ঢাকায় নিজের প্রথম ম্যাচে সিলেট সুপারস্টারসের বিপক্ষে খেলেছেন ৮ রানের ইনিংস। পরেরটি ৭ ডিসেম্বরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের বিপক্ষেও খেলেছেন ওই ৮ রানের এক ছোট্ট ইনিংস।

এই ম্যাচে গেইল প্রথম বাউন্ডারি হাঁকান বরিশালের ব্যাটিং ইনিংসের তৃতীয় ওভার থেকে। ওই ওভারের প্রথম বলেই শফিউলকে চার মেরে ঝড়ো ইনিংসের শুরু করেন গেইল। পরেরটি চতুর্থ ওভারের শেষ বলে। নাঈমকে চার মেরে নিজের দ্বিতীয় বাউন্ডারি তুলে নেন। এরপর ষষ্ঠ ওভারে এক রকম উড়িয়েই দেন চিটাগংয়ের বোলার আসিফকে। তার প্রথম বল নো হলে পরের বলে ছয়, এরপর চার হাঁকালেও পরের বলে কোনো রান পাননি। তারপর আবারো চার, পঞ্চমটি বেশ সতর্কতার সাথে রক্ষণাত্মক খেলে ছয় নম্বর বলটিকে আবার চার হাঁকিয়ে ১৯ রান নিয়ে পুরো মাঠে উত্তাপ ছড়ান।

১২তম ওভারে দিলশানকে ছক্কা হাঁকানো গেইল পরের ওভারে তাসকিনের বল লংঅনের উপর দিয়ে মাঠের বাইরে পাঠান। ১৪তম ওভারে বিলওয়াল ভাট্টিকে ডিপ-মিডউইকেটের উপর দিয়ে সীমানা ছাড়া করেন।