ফেনীতে তিনসন্তানের জননীকে ভাগিয়ে নিলো পরশুরাম ভুমি অফিসের জসিম

আপডেট : August, 23, 2016, 11:08 am

বিশেষ প্রতিনিধি->>>
পরশুরাম উপজেলা ভুমি অফিসের অফিস সহায়ক (বর্তমানে মুন্সির হাটে কর্মরত) জসিম উদ্দিন পরশুরামের তিন সন্তানের জননীকে পুষলীয়ে ভাগিয়ে নিয়েছেন। এই ব্যাপারে তিন সন্তানের জননীর স্বামী পরশুরাম থানায় জসিম উদ্দিন কে অভিযুক্ত করে একটি সাধাারন ডায়েরী করেছেন।
শনিবার পরশুরাম থানার এস আই ইয়াহুর ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘটনার তদন্ত করেছেন উপজেলা কোয়াটারস্থ্য বাসিন্দাদের জিঞ্জাসা বাদ করেছেন। তিন সন্তানের জননীর বড় মেয়ে স্থানীয় একটি বালিকা বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রী।
অভিযোগ থেকে জানা গেছে মো জসিম উদ্দিন গত দুই বছর ধরে পরশুরাম উপজেলা ভুমি অফিসের অফিস সহায়ক হিসাবে কর্মরত ছিলেন সে সুবাধে উপজেলা পরিষদের আরেক কর্মচারীর স্ত্রী তিন সন্তানের জননীর সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন এবং তারা দুজনে গোপনে মেলামেশা করতে থাকেন বলে অভিযোগ করেছেন তিন সন্তানের জননীর স্বামী নিজেই।
এক পর্যায়ে বিষয়টি জানাজানি হলে গত তিনমাস আগে তিন সন্তানের জননীর স্বামী বিষয়টি পরশুরাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (সাবেক) মনোয়ারা বেগম এর কাছে অভিযোগ দেন । উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনোয়ারা বেগম জসিম উদ্দিন ও তার বাবা মার উপস্থিতিতে জসিমকে সর্তর্ক করে দেন। একই সময় উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিনও জসিম উদ্দিনকে সর্তর্ক করে দেন। জসিম উদ্দিন এর পিতা বর্তমানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বাস ভবনের নৈশ প্রহরী হিসাবে কর্মরত রয়েছেন।
গত সপ্তাহে জসিম উদ্দিন ফুলগাজীর মুন্সির হাটে বদলী হয়ে গেলে ১১ আগষ্ট জসিম উদ্দিন সন্ধায় ওই তিন সন্তানের জননীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ভাগিয়ে নিয়ে যান। ১৪ আগষ্ট জসিম উদ্দিন ফুলগাজীর মুন্সিরর হাটে যোগদান করেন।
ভুমি অফিসের অফিস সহায়ক জসিম উদ্দিন তার বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ অস্বিকার করেছেন, তিনি দাবি করেন তাকে সামাজিক ভাবে হেয়প্রতিপন্ন করতেই মহিলার স্বামী নিজেই তার স্ত্রীকে জড়িয়ে বিভিন্ন কুৎসা রটাচ্ছে।