দাগনভূঞায় মাদ্রাসা ছাত্রী অহরণ মামলায় আরও ২ যুবক আটক

আপডেট : August, 24, 2016, 12:52 pm

বিশেষ প্রতিনিধি->>>

দাগনভূঞার উপজেলার সিলোনীয়া রইসা-রহমানীয়া মাদ্রাসার ৩য় শ্রেনীর ছাত্রী ফারজানা আক্তার এলিনকে(৯)অহরণ মামলায় আরও ২ যুবক আটক আটক করেছে পুলিশ।মঙ্গলবার শিশুটিকে অপহরণের ৪ঘন্টা পর উদ্ধারের সময় আটককৃতদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বুধবার ভোর রাতে তাদেরকে নিজ নিজ বাড়ী থেকে আটক করা হয়।

এরা হলেন,উপজেলার পূর্বচন্দ্রপুর ইউনিয়নের গজারিয়া গ্রামের নজির বলি মেম্বার বাড়ীর প্রবাসী বাবুল মিয়ার ছেলে হুমায়ুন কবির ও জায়লস্ক ইউনিয়নের এরও এক যুবক(তার নাম জানা যায়নি)।

এদিকে অপহৃতার মা জায়লস্কর ইউপির উত্তর জায়লস্ক গ্রামের সফি ভেন্ডার বাড়ীর প্রবাসী জসিম উদ্দিনের স্ত্রী আলেয়া বেগম বাদী হয়ে এঘটনায় আটককৃত জায়লস্কর ইউপির সিলোনিয়া মনু বেপারি বাড়ির আবদুল বারেকের ছেলে আবদুর রাজ্জাক(৩২),মেয়ে তাজনাহার বেগম(১৬) ও এরও এক যুবকসহ, পূর্বচন্দ্রপুর মডেল ইউপির গজারিয়া গ্রামের হাজী হাবিব উল্যা মিয়ার বাড়ির আলী আহাম্মদের ছেলে নাজিম উদ্দিন(২৫) ও একই গ্রামের নজির বলি মেম্বার বাড়ীর প্রবাসী বাবুল মিয়ার ছেলে হুমায়ুন কবিরের নাম উল্লেখ করে ঘটনার দিন রাতেই দাগনভূঞা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন।

দাগনভূঞা থানার এসআই মজিবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে ফেনী রিপোর্টকে জানান,মামলার এজহারে উল্লেখিত ৫জনকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে বুধবার জেলা হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।এ মামলার অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে গ্রেফতারে পুলিশি চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

প্রসঙ্গত,আটককৃত আসামি সিএনজি চালক আবদুর রাজ্জাক অপহৃত ওই মেয়েটিকে মাসিক ভাড়ার ভিত্তিতে তার বাড়ি থেকে প্রতিদিন মাদ্রাসায় আনা-নেওয়া করত। মঙ্গলবার সকালে সে তার বোন তাজনাহারসহ কৌশলে উল্লেখিত আসামীদের যোগশাযোশে শিশুটিকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

পরে উপজেলার পূর্বচন্দ্রপুর ইউনিয়নের গজারিয়া গ্রামের হাজী হাবিব উল্যা মিয়ার বাড়ি অভিযান চালিয়ে পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধার করে।ওই সময় অপহরণের অভিযোগে এক নারীসহ বাকী তিনজনকে আটক করে পুলিশ।