ফেনীতে যুবলীগ নামধারী বখাটে সুমনসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে প্রবাসীর স্ত্রীর-শ্লীলতাহানী ও ভিডিও ধারনের অভিযোগ

আপডেট : August, 31, 2016, 11:32 am

আলোকিত সময় ডেক্স->>>। ৩১আগস্ট

ফেনী সদর উপজেলার কালিদহ ইউনিয়নের তুলাবাড়িয়ায় এক প্রবাসীর স্ত্রীর শ্লীলতাহানি করে মোবাইলে ভিডিও ধারন করার অভিযোগ উঠেছে । শুক্রবার (২৬আগস্ট) বিকালে  তুলাবাড়িয়া হাই স্কুলের সামনে এ ঘটনাটি ঘটে। জানাযায়,স্বামী বিদেশ থাকায় প্রায় তিন বছর ধরে  মমতা রানী দাস (২৫) তুলাবাড়ীয়া হাইস্কুল সংলগ্ন সাবেক সরকারি কর্মকর্তা নান্টু মজুমদারের বাড়ীতে বোনের বাসায় থাকেন। যুবলীগ নামধারী এলাকার বখাটে সুমন (৩০) বেশ কিছু দিন ধরে মমতা রানী দাস কে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছে। মমতা বিষয়টি সুমনের বাবা ও এলাকার মুরব্বিদেরকে জানায়। এতে সুমন ক্ষিপ্ত হয়ে প্রকাশ্যে মমতাকে শ্লীলতাহানি করে মোবাইলে ভিডিও ধারন করে।

এ বিষয়ে মমতার বোন পান্না মজুমদার বাদী হয়ে ফেনী পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, যুবলীগ নামধারি সুমন এলাকার এজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী এবং মাদকা আসক্ত। সুমন দীর্ঘদিন পর্যন্ত পান্না মজুমদারকে ইভটেজিং এবং কু প্রস্তাব দিয়ে আসছে। পান্না মজুমদার কু প্রস্তাবে রাজী না হওয়াতে রাতের আঁধারে সাঙ্গ-পাঙ্গ নিয়ে বসত বাড়ীতে ঢিল মেরে উপ্তক্ত করে। বাড়ীর আসে পাশে ক-ুদৃষ্টিতে আনাঘোনা করে। অভিযোগসূত্রে আরো জানা যায়, সুমন ক্ষিপ্ত হয়ে প্রকাশ্যে মমতাকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। এ বিষয়ে পান্না মজুমদার ৩০আগষ্ট মঙ্গলবার সুমন ও পরিমল সহ ৫জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে ফেনী পুলিশ সুপার বরাবর অভিযোগ দাখিল করে।

এ বিষয়ে মমতা রানী দাস জানান, সুমন নিজেকে যুবলীগের নেতা দাবী করেন । সে ( সুমন) নেশাকরে প্রায় সময় আমাদের  বাসার উপর ঢিলমারে। মোবাইলে সরাসরি আমাকে কু-প্রস্তাব দে। মমতা আরো বলেন, সুমন নেশা করে মাতাল অবস্থায় আমার বোন কে বলে আমাকে বাসা থেকে বের করে দিতে । রাতের বেলায় আমাকে বাসা থেকে বের করে দিলে আমার বোনকে ৫ হাজার টাকা দিবে ।

পুলিশ সুপার রেজাউল হক পিপিএম ৫জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গ্রহণ করে বলেন, বিষয়টি অত্যন্ত জটিল খুব শিঘ্রই আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।