আ’লীগ নেতার হাতে ৩য় শ্রেণীর এক শিশু ধর্ষিত

আপডেট : September, 8, 2016, 2:15 pm

আলোকিত সময ডেক্স্->>>

ফরিদগঞ্জের গল্লক বাজারের সিএনজি অটোরিক্সা স্টেশনের লাইনম্যান ও স্থানীয় আ’লীগ নেতা হাতে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ৩য় শ্রেণীর এক শিশু । গুরুতর আহত অবস্থায় শিশুটি চাঁদপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ব্যাপারে শিশুটির পিতা পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। ঘটনার পর থেকে ধর্ষক বিল্লাল সওদাগর (৫০) পলাতক রয়েছে। এর প্রতিবাদে স্থানীয় বিক্ষুব্ধ লোকজন বিক্ষোভ মিছিল করেছে। এদিকে ধর্ষকের ব্যক্তিগত দোকানটি তালাবদ্ধ করে দিয়েছে পুলিশ।

জানা যায়, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার অধিবাসী মুনসুর আলী রাজমিস্ত্রী কাজ করার জন্য ২০০১ সাল থেকে নিজ এলাকা ছেড়ে ফরিদগঞ্জের গল্লাক বাজারে বাসা ভাড়া করে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছেন। তার একমাত্র শিশু কন্যা (৯) প্রতিদিনের মত বুধবার শ্রীকালিয়া মুন্সি বাড়ি সংলগ্ন পাঞ্জেগানা মসজিদে আরবী পড়ার জন্য যায়। সকাল সাড়ে ৬টায় আরবী পড়া শেষ করে বাড়ি ফিরছিল।

এ সময় গল্লাক বাজার ব্রিজের পাশে সিএনজি স্কুটার স্টেশনের লাইনম্যান ও গুপ্টি পূর্ব ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড আ’লীগের সহ-সভাপতি শ্রীকালিয়া গ্রামের মৃত মিন্নত আলি সওদাগরের ছেলে বিল্লাল সওদাগর শিশুটিকে বিস্কুট ও চকলেট কিনে দেবার নাম করে সে তার চায়ের দোকানে নিয়ে যায়।সেখানে শিশুটিকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে ধর্ষণ করে।জনৈক সিএনজি স্কুটার চালকের সন্দেহ হলে ও ওই শিশুর চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে ধর্ষক পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে শিশুটির পিতা তাকে চিকিৎসার জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে এ ঘটনায় স্থানীয় জনতা ও স্কুলের শিক্ষার্থীরা নরপশু বিল্লাল সওদাগরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে গল্ল্লাক বাজারে মিছিল ও সমাবেশ করেছে।

সংবাদ পেয়ে ফরিদগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মাহাবুব মোল্লা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি জানান, শিশুটির পিতা পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। পুলিশ সুপারের নির্দেশে ধর্ষককে আটকের চেষ্টা চলছে।