সোনাগাজীতে পুলিশের দায়ের করা মামলায় ছাত্রদল যুবদলের ১২নেতাকর্মী বেকসুর খালাস

আপডেট : June, 25, 2019, 7:32 pm

জাবেদ হোসাইন মামুন
সোনাগাজীতে পুলিশের উপর হামলার অভিযোগ এনে পুলিশের দায়ের করা মামলায় সোনাগাজী উপজেলার একই পরিবারের ৪ভাই সহ ছাত্রদল-যুবদলের ১২নেতাকর্মীকে বেকসুর খালাস ও তিন জনকে ৬ মাসের করে কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার ২৫জুন দুপুরে ফেনীর অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তাহেদুল হক দীর্ঘ শুনানী শেষে এ রায় দেন।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ১৫এপ্রিল সোনাগাজী উপজেলার উত্তর চরচান্দিয়া গ্রামে মৌলভী হাবিব উল্যাহ সাহেবের বাড়ির সামনে আসামি ধরতে গেলে পুলিশের উপর হামলার অভিযোগ এনে সোনাগাজী মডেল থানার তৎকালীণ এসআই রমজান আলী বাদী হয়ে ছাত্রদল-যুবদলের ১৬ জন নেতাকর্মীকে আসামি করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।
২০০১৬ সালের ১৪ আগস্ট সোনাগাজী মডেল থানার তৎকালীণ এসআই মো. শাহআলম তদন্ত শেষে ১৬জনের বিরুদ্ধে চার্জশীট প্রদান করেন। আদালত দীর্ঘ শুনানী শেষে ফেনীর অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তাহেদুল হক ১৬ জন আসামির মধ্যে ১২জনকে বেকসুর খালাস এবং তিনজনকে দোষী সাব্যস্ত করে তিন জনকে ৬ মাস করে কারাদন্ডের আদেশ প্রদান করেন। খালাস প্রাপ্তরা হচ্ছেন, উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি, ফেনী জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি সৈয়দ আলম ভূঞা, তার ভাই ছাত্রদল নেতা সামছুল আলম নোবেল, তার ভাই ইতালি প্রবাসী নুর আলম, অপর ভাই কুয়েত প্রবাসী মো. আলা উদ্দিন, যুবদল কর্মী নজরুল ইসলাম, উজ্জল, মো. আজিম, জুয়েল, ও সাইফুল ইসলাম। এছাড়া ৬ মাসের সাজাপ্রাপ্তরা হচ্ছেন, ওমান প্রবাসী, সাবেক যুবদল নেতা আবুল কাসেম, ব্যবসায়ী ও যুবদল নেতা আবদুল মান্নান নয়ন এবং মো. ওমর ফারুক।
বাদী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন ফেনী জজকোর্টের এপিপি এডভোকেট সৈয়দ আবুল হোসেন। আসামি পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন এডভোকেট মেজবাহ উদ্দিন খান।
বাদী মামলায় উল্লেখ করেন, উত্তর চরচান্দিয়া গ্রামে আসামি ধরতে গেলে সংঘবদ্ধ আসামিদের হামলায় ৩জন পুলিশ আহত হয়।