সোনাগাজীতে এক পরিবারকে সমাজচ্যুত, জেলা প্রশাসকের কাছে দুই সমাজপতির বিরুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের অভিযোগ

আপডেট : July, 19, 2019, 6:03 pm

সোনাগাজী (ফেনী) প্রতিনিধি->>>

সোনাগাজীতে এক পরিবারকে সমাজচ্যুত করে এক ঘরে করে রাখার অভিযোগে ফেনীর জেলা প্রশাসকের কাছে দুই সমাজপতির বিরুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

বুধবার দুপুরে সমাজচ্যুত পরিবারের সদস্য একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের খন্ডকালীণ শিক্ষক বাদি হয়ে সমাজপতি নুরনবী তোতা মেম্বার ও ওয়াসিউর রহমান খসরুর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ দায়ের করেন।

ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের গৃহকর্তা মো. আবুল কালাম মিয়া জানান, তিনি উপজেলার চরচান্দিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ পূর্ব চরচান্দিয়া গ্রামের বাসিন্দা। গ্রামে রিয়াদ স্টোর নামে মুদি দোকানের ব্যবসা করে পরিবার পরিজন নিয়ে দক্ষিণ পূর্ব চরচান্দিয়া সমাজ পরিচালনা কমিটির সদস্য হিসেবে বসবাস করে আসছে। তার ছেলে মোশাররফ হোসেন ওই সমাজের যুবক কমিটির সাধারন সম্পাদক।

সমাজের স্বঘোষিত সভাপতি হিসেবে দাবি করে চরচান্দিয়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের সদস্য নূরনবী তোতা মেম্বার দীর্ঘদিন এলাকায় আধিপাত্য বিস্তার করে রেখেছে। প্রায় ১০-১৫ বছর পর্যন্ত সামাজিক আর্থিক তহবিলের কোন প্রকার হিসাব না দিয়ে অর্থ তসরুপ করার অভাযোগে উঠে তার বিরুদ্ধে।

সম্প্রতি যুবক কমিটি সমাজ পরিচালনা কমিটির কাছে সমাজের আর্থিক তহবিলের হিসাব চান। এতে সমাজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি নুরনবী তোতা মেম্বার ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে। গত ২৮জুন নুরনবী তোতা মেম্বার স্বাক্ষরিত সামাজিক ভাবে বয়কটের ফরমান জারি করে সমাজের ৩টি জামে মসজিদে ঘোষণা দিয়ে সমাজের ঘরে ঘরে পরিপত্র পৌঁছে দিচ্ছে। সমাজপতিদের বিরুদ্ধে তাদের অন্যায় অপকর্মের প্রতিবাদ করলে তাদের বাড়ি ঘরে হামলা সহ মিথ্যা মামলায় জড়ানোর হুমকি প্রদান করে আসছে।

এতে নিরুপায় হয়ে নিরিহ পরিবারটি আইনের শাসন ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় প্রতিকার পেতে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ ব্যপারে নুরনবী তোতা মেম্বার জানান, তারা কয়েকজন সমাজপতির সাথে বেয়াদবী করায় তাদেরকে বয়কট করার ঘোষণা দিয়েছি।

চরচান্দিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন মিলন জানান, তিনি বিষয়টি শুনেছেন।