সোনাগাজী যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে নির্যাতন ও হত্যার চেষ্টা

আপডেট : January, 3, 2020, 4:04 pm

আলোকিত সময় ডেস্ক>>>

 

ফেনীর সোনাগাজীতে যৌতুকের দাবিতে নুর নাহার বিলকিছ(২৯) নামে এক গৃহবধূকে শারীরিকভাবে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্যাতিতা গৃহবধূ সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনাটি ঘটে গত ১ জানুয়ারী বুধবার উপজেলার চর চান্দিয়া ইউনিয়নের ওলামা বাজার নামক স্থানে।

মামলার এজাহার ও ভুক্তভোগীর পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ফেনী জেলার সোনাগাজী উপজেলার চরচান্দিয়া ইউনিয়নের ওলামা বাজার নামক স্থানে । মোঃআবদুর রাজ্জাক’র ছেলে আবদুর রহিম সাইফুল (৩৫) সঙ্গে ১২ বছর আগে একই উপজেলার পালগিরি গ্রামের মোঃ মফিজুর রহমানের মেয়ে নুর নাহার বিলকিছ(২৯) বিয়ে হয়,উভয় পরিবারের সম্মতিতে। বর্তমানে তাদের সংসারে ২টি সন্তান রয়েছে। তবে বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য প্রায়ই সময় স্বামী মানসিক নির্যাতন করত বিলকিছকে। গত একমাস আগে তার স্বামী দেশের বাইরে থেকে খালি হাতে ফিরে আসে, বেপরোয়া হয়ে উঠে টাকার জন্য। এর আগে নির্যাতন করে ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দাবি করে আদায় করে নেন তার স্বামী। গত বুধবার(১ জানুয়ারী) আবার ৫ লক্ষ টাকা যৌতুক এনে দেওয়ার দাবি করলে এতে অস্বীকৃতি জানান বিলকিছ। পরে তার স্বামী আবদুর রহিম শারীরিকভাবে অমানবিক নির্যাতন করে ঘরে আটকে প্রানে হত্যার উদ্দেশ্যে গলা চিপে ধরে এবং লাকড়ি দিয়া ডান হাতের বাহু পিঠে
বাড়ি মারিয়া মারাত্মক জখম করে।
দুই নাম্বার আসামী বিলকিসকে কোমরে লাথি মারতে থাকে, ৩ এবং ৪ নম্বর আসামি তার মুখে প্রচন্ড চড় থাপ্পড় মারিয়া জখম করে, ৫ নম্বর আসামি চুল টানিয়া মাটিতে ফেলে এবং সব আসামি একসাথ হইয়া মারধোর করিয়া তার সন্তান দুটিসহ বিলকিছকে একটি সিএনজি ধরাইয়া বের করে দেয়। এই ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার নির্যাতিতা গৃহবধূ নুর নাহার বিলকিছ বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনালে ৫ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন। আসামিরা হলেন তার স্বামী আব্দুর রহিম,দেবর আব্দুর রব,শ্বশুর আব্দুর রাজ্জাক,শাশুড়ি মোহছেনা খাতুন, ননদ আনোয়ারা বেগম।