সোনাগাজী কলেজে শিক্ষক সংকটের কারণে অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষ ছাত্রদের হাতে দুই ঘন্টা অবরুদ্ধ

আপডেট : January, 22, 2020, 6:37 pm

জাবেদ হোসাইন মামুন->>>সোনাগাজী সরকারি কলেজে শিক্ষক সংকট ও অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়মিত নিয়মিত কলেজে না যাওয়ার অভিযোগে বুধবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ কে অবরুদ্ধ করে রাখে সাধারন শিক্ষার্থীরা। দুপুর ১২টার দিকে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ কে উদ্ধার করে। পুলিশ ও ছাত্ররা জানায়, ব্যবস্থাপনা বিষয়ের একজন শিক্ষক দীর্ঘ ৬মাস যাবৎ নেই। এছাড়া গত ১৫দিন থেকে আরো তিনজন শিক্ষক বুনিয়াদি প্রশিক্ষণের কারণে ছুটিতে রয়েছেন। ছাত্রদের দাবি অধ্যক্ষ মহি উদ্দিন চৌধুরী ও উপাধ্যক্ষ রেজা মোহাম্মদ এনামুল হক নিয়মিত কলেজে যাননা। শিক্ষক সংকটের কারণে এইচএসসি নির্বাচনী পরীক্ষায় অধিকাংশ শিক্ষার্থী অকৃতকার্য হতে হয়েছে। এসব দাবি নিয়ে বুধবার সকাল ১০টার দিকে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষের কার্যালয় ঘেরাও তাদেরকে অবরুদ্ধ করে রাখে। এক পর্যায়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মধ্যে কয়েকজন ছাত্রকে অফিস কক্ষে ডাকেন অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষ। এসময় তাদের দাবি দাওয়ার বিষয়ে আলোচনার সময় প্রথম বর্ষের ছাত্র গোলাম সারওয়ার মুঠোফোনে ভিডিও ধারণ করতে থাকলে উপাধ্যক্ষ তার হাত থেকে মোবাইল কেড়ে নিয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা রুজু করার ভয় দেখান। এসময় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা উত্তেজিত হয়ে পড়ে। উদ্বুদ্ধ পরিস্থিতিতে নিরুপায় হয়ে এক পর্যায়ে অধ্যক্ষ থানা পুলিশের সহযোগিতা চান। ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে তাদেরকে উদ্ধার করেন। এসময় অধ্যক্ষ ব্যবস্থাপনা বিষয়ে খন্ডকালীণ শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। একাদশ শ্রেনির প্রথম বর্ষের ছাত্র আবির ও ফরহাদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। অভিযোগের ব্যাপারে অধ্যক্ষ মহি উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ছাত্ররা অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষের কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ শুরু করলে কয়েকজনকে তার অফিস কক্ষে ডাকলে একজন ছাত্র ভিডিও ধারণ করলে উপাধ্যক্ষ বাধা দিলে উত্তেজনা চরম আকার ধারণ করলে পুলিশ ডাকা হয়। পরে পুলিশের উপস্থিতিতে খন্ডকালীণ একজন শিক্ষক নিয়োগের আশ্বাস দিলে ছাত্রদের উত্তেজনা প্রশমিত হয়। সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মঈন উদ্দিন আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। সোনাগাজী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নেয়ামত উল্যাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সাধারন ছাত্রদের যৌক্তিক আন্দোলনে ছাত্রলীগ তাদের সমর্থন দিবে।