সোনাগাজীতে মঙ্গলকান্দি ইউপি চেয়ারম্যানের উপর মাদক ব্যবসায়ীদের হামলা, অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেলেন চেয়ারম্যান বাদল

আপডেট : April, 29, 2020, 5:18 am

জাবেদ হোসাইন মামুন->>>
ফেনীর সোনাগাজীর মঙ্গলকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন বাদলকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালিয়েছে মাদক ব্যবসায়ীরা। তবে তিনি শারীরিকভাবে আহত না হলেও অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেছেন বলে দাবি করেছেন। ৪০ পিস ইয়াবা সহ মো. হেলাল (৩৪) ও আবুল বাসার (৩০) নামে দুই মাদক ব্যবসায়ীকে ধরে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় জনতা। হামলার অন্যতম হোতা ছেরাজুল হক সবুজ ওরফে গুরা সবুজ (৩৮) পালিয়ে গেছে। মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার মঙ্গলকান্দি ইউনিয়নের লকুর দোকান সংলগ্ন উত্তর মঙ্গলকান্দি গ্রামের হাজারী বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সোনাগাজী মডেল থানার এসআই ছায়েদুর রহমান বাদি হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেছেন।
পুলিশ, এলাকাবাসী ও চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন বাদল জানান, হাজারী বাড়ির ফকির আহম্মদের ছেলে ছেরাজুল হক সবুজ ওরফে গুরা সবুজ এলাকার চিহ্নিত একজন মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে ৩টি মাদক, দুইটি অস্ত্র, একটি চাঁদাবাজি ও একটি মারামারি সহ ৭টি মামলা রয়েছে। তার কাছ থেকে খুচরা বিক্রেতারা নিয়মিত মাদক বেছা-কেনা করে আসছে। এমন খবরে স্থানীয় গ্রামবাসী দিয়ে পাহারা বসান চেয়ারম্যান বাদল। মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে বগাদানা ইউনিয়নের মান্দারি গ্রামের নূর আলমের ছেলে মো. হেলাল ও একই গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে আবুল বাসার গুরা মিয়া সবুজের কাছে ইয়াবা কিনতে যায়। স্থানীয় জনতা টের পেয়ে ওই যুবকদের আটকে রেখে চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন বাদলকে খবর দেন। তিনি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান। ঘটনাস্থল থেকে কিছুটা দূরে তার ব্যবহৃত মোটর সাইকেলের গতিরোধ করে ধারালও অস্ত্র দিয়ে বাদলকে হত্যার উদ্দেশ্যে কোপ মারে গুরা সবুজ । চেয়ারম্যান বাদল মোটর সাইকেল ফেলে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে নিজেকে আত্মরক্ষা করেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশদল গেলে জঙ্গলে থেকে পুলিশের উপস্থিতিতেই আরও এক রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে গুরা সবুজ।