সোনাগাজীর মধ্যম চরচান্দিয়ায় রাতের আঁধারে বোমা ফাটিয়ে জমি জবর দখলের চেষ্টার অভিযোগ

আপডেট : July, 23, 2020, 2:38 am

জাবেদ হোসাইন মামুন->>>> ফেনীর সোনাগাজীর মধ্যম চরচান্দিয়ায় রাতের আঁধারে বোমা ফাটিয়ে জমি জবর দখলের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতিপক্ষও তাদের ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা জমি মালিককে গুলি করে হত্যার চেষ্টাও চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন। তবে অল্পের জন্য ভূমি মালিক রক্ষা পেয়েছেন বলে দাবি করেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে মধ্যম চরচান্দিয়া গ্রামের হোনার বাপের দোকান সংলগ্ন স্থানে এ ঘটনা ঘটে। ক্ষতিগ্রস্ত ভূমি মালিক মাহমুদুল হাসান দিপু জানান, তার পিতা মো. মোস্তফার মালিকীয় চরচান্দিয়া মৌজার জেএল নং১০০/১৯১, দিয়ারা ১১৭ ও ৫০৯ খতিয়ানের ৩২৪২, ৩২৫০, ৩৫২০, ৩৫২১ দাগ, বর্তমান জরিপে জেএল নং-৯৬, বিএস খতিয়ান নং-১৭২৮, ডিপি ৬০১ নং খতিয়ানেরর ৫৩০৯, ৫৩০৮ দাগের আন্দরে ৫০ শতক জমি বিক্রির জন্য চলতি বছরের ৭জানুয়ারি চরচান্দিয়া গ্রামের আবদুল হালিমের ছেলে ইনটেক প্রপ্রার্টিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম ফখরুল ইসলামের বায়নাপত্র করেন। ফখরুল ইসলামকে ৫০ শতক জমির দখল বুঝিয়ে দিলে তিনি উক্ত জমিতে বায়না সূত্রে মালিক হিসেবে সাইন বোর্ডও দেন। উক্ত জমিটি ধান চাষের জন্য মো. সোহেল নামে স্থানীয় এক ব্যক্তির নিকট বর্গাও দেন তিনি। সোহেল আউশ ধানও রোপন করেছেন। উক্ত জমির জমা খারিজ খতিয়নও মো. মোস্তফার নামে প্রচার হয়। মোস্তফার নামে প্রচারিত জমা খারিজ খতিয়ানের বিরুদ্ধে সোনাগাজীর সহকারি কমিশনার (ভূমির) বরাবরে বাতিলের আবেদন দেন মধ্যম চরচান্দিয়া গ্রামের আবদুল মালেকের ছেলে আবদুল খালেক। বিষয়টি বুধবার সরেজমিনে তদন্তের দিন ধার্য করা হয়। সরজমিনে তদন্তের পূর্বের রাতে জমিটির প্রায় ১৫-২০ শতক আবদুল খালেক গংদের দখলে রয়েছে দেখানোর জন্য মঙ্গলবার দিবাগত রাত অনুমান ৩টার দিকে ধানী জমির উপর আইল নির্মাণের চেষ্টা চালায়। খবর পেয়ে মো. মোস্তফার ছেলে মাহমুদুল হাসান দিপু ঘটনাস্থলে ছুটে গেলে আবদুল খালেক ও জহির উদ্দিনের একদল অস্ত্রধারী ভাড়াটে সন্ত্রাসী তাকে লক্ষ্য করে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি করে। সে অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পায়। তিনি এ ব্যাপারে সোনাগাজী মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তিনি আরো দাবি করেন, তার পিতা মো. মোস্তফার দূরাগ্য ব্যাধিতে দুই চোখ অন্ধ হয়ে গেছে। পিতার খেদমত ও পিতার সম্পত্তি দেখশোনা করতে তিনি ঢাকায় পড়ালেখা না করে বাড়িতেই রয়েছেন। তার পিতার মালিকীয় দখলীয় জমির উপর লোপুপ দৃষ্টি পড়ে ভূমি সদ্যু চক্রের।

এব্যাপারে আবদুল খালেক ও জহির উদ্দিন তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, উক্ত জমি নিয়ে মোস্তফার সাথে আদালতে তাদের মামলা বিচারাধীন রয়েছে। রাতের আঁধারে জমি জবর দখলের চেষ্টা ও মোস্তফার ছেলে দিপুকে গুলি করে হত্যার চেষ্টার অভিযোগও সত্য নয়।
এব্যাপারে বায়না সূত্রে মালিক ইনটেক প্রপ্রার্টিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম ফখরুল ইসলাম জানান, প্রায় সাত মাস পূর্বে তিনি বায়না সূত্রে মালিক হিসেবে উক্ত জমিতে সাইন বোর্ড ও ধান চাষের জন্য সোহেল নামে এক ব্যক্তির নিকট বর্গাও দেন। তৎকালীণ সময়ে জহির উদ্দিনের উপস্থিতিতে আবদুল খালেক মসজিদের জন্য চান। তিনি রেজিস্ট্রির পর মসজিদের জন্য দুই শতক জমি দান করতেও রাজি হন। কিন্তু হঠাৎ করে জহির উদ্দিন ও আবদুল খালেক পরস্পর যোগসাজসে তার জমিতে আইল নির্মাণ করে নিজেদের দখলীয়য় জমি বোঝাতে চেয়েছিল। তিনি জহির উদ্দিন ও আবদুল খালেকের ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানান।
সোনাগাজী মডেল থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম জানান, পাল্টাপাল্টি অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি তদন্ত চলছে। দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে