সোনাগাজীতে ভূমি দস্যুদের অত্যাচার থেকে রেহাই পেতে এক ব্যবসায়ীর সংবাদ সম্মেলন

আপডেট : May, 18, 2021, 11:24 pm

জাবেদ হোসাইন মামুন->>>
ফেনীর সোনাগাজীতে ক্রয়কৃত ভূমি জবর দখলের চেষ্টা ও অত্যাচার-নির্যাতন থেকে রেহাই পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মো. হোসেন নামের এক নির্যাতিত ব্যবসায়ী।
১৮ মে মঙ্গলবার সকালে পৌর শহরের একটি রেস্টুরেন্টে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করেন, ২০০৭ সালের তিন জুলাই উপজেলার মঙ্গলকান্দি ইউনিয়নের ২৬৬নং মির্জাপুর মৌজার, হাল ৪৭ নং মির্জাপুর মৌজার সাবেক ১৭৭ খতিয়ান, এম.আর.ও.আর. ২০৪ নং খতিয়ানের বাংলাদেশ জরিপী ৮০৪ খতিয়ানের সাবেক ১৩২২ দাগ, হাল ১৯৩৭ দাগে, ২৮১৫ নং ছাপ কবলা মূলে খরিদা হিসেবে চার শতক একত্রিশ দশমিক পঁচিশ পয়েন্ট ভূমির মালিক দখলদার রয়েছেন। জমা-খারিজ খতিয়ানও তার নামে লিপিবদ্ধ হয়েছে। তিনি ব্যবসায়ীক কারণে পরিবার পরিজন নিয়ে ঢাকা শহরে বসবাসের সুযোগে উক্ত জমিতে লোপুপ দৃষ্টি পড়ে মীর্জাপুর গ্রামের ভূমি দস্যু অমূল্য কুমার জল দাস গংদের। গত ২৩ এপ্রিল সকালে অমূল্য কুমার জলদাস, তার ছেলে সুভাষ জলদাস, বিকাশ জলদাস ও তাদের ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা ব্যবসায়ীর জমিতে জোরপূর্বক খুঁটি স্থাপন করে বেড়া দেয়ার চেষ্টা চালায়। এসময় তিনি বাধা দিলে তাকে প্রকাশ্যে হত্যা করে লাশ গুমের হুমকি দেয় সন্ত্রাসীরা। জানমালের নিরাপত্তা চেয়ে একই দিন রাতে তিনি সোনাগাজী মডেল থানায় একটি জিডি করেন। জিডি নং-১০৬৪, তাং- ২৩-০৪-২০২১খ্রিস্টাব্দ। অমূল্য গং সংখ্যালঘু ধোয়া তুলে ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে ফের জমিটি জবর দখলের চেষ্টা করলে ওই ব্যবসায়ী উপজেলা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি সমর দাস ও সাধারণ সম্পাদক রুপম শর্মার দ্বারস্থ হন। তাদের মধ্যস্থতায় একাধিক সালিশি বৈঠকে কাগজপত্র বিশদভাবে পর্যালোচনা করে তারা ব্যবসায়ীর পক্ষে রায় দেন। সংখ্যালঘু নেতাদের আদেশ উপেক্ষা করে অমুল্য গং ব্যবসায়ীকে ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে অব্যাহত হুমকি দিতে থাকে। এতে নিরূপায় হয়ে ব্যবসায়ী মো. হোসেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও সাংবাদকিদের সহযোগিতা কামনা করে এ সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করেন। তিনি দাবি করেন অত্যাচারী, ভুমিদস্যু ও উগ্রবাদী দুষ্ঠু প্রকৃতির লোক হিসেবে অমূল্য গং তার যে কোন বড় ধরণের ক্ষতি সাধনের অপতৎপরতায় লিপ্ত রয়েছেন।